পায়খানা নরম হওয়ার উপায়

পানি পায়খানা নরম করে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর কর‍তে সহায়তা করে। এ ছাড়া ফাইবারজাতীয় খাবার প্রচুর পানি শোষণ করে। তাই ডায়েটে ফাইবার বাড়ানোর সাথে সাথে পানি পান করার পরিমাণও বাড়াতে হবে। যথেষ্ট পরিমাণে ফাইবার ও পানি খেলে সাধারণত কয়েকদিনের মধ্যে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়।

পায়খানা নরম হওয়ার উপায়

  • অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় শরীর হাইড্রেট না থাকলে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দেখা দিতে পারে। সে জন্য পর্যাপ্ত পানি পানের পাশাপাশি তরল খাবার, পানিসমৃদ্ধ ফলমূল ও শাকসবজি খাদ্যতালিকায় রাখতে হবে।

  • বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত শারীরিক পরিশ্রম ও ব্যায়াম করলে হজম প্রক্রিয়া ঠিক থাকে। আর হজম ঠিক থাকলে এ সমস্যা থেকে মুক্তি মেলে।

  • খাদ্যতালিকায় পর্যাপ্ত আঁশসমৃদ্ধ খাবার রাখতে হবে। এ ধরনের খাবার মল তৈরির প্রক্রিয়াকে সহজ করতে সাহায্য করে। লাল চাল, লাল আটা, ডাল–জাতীয় খাবার, চিয়া সিড, শাকসবজি ও বাদাম এ ধরনের খাবার। এসব খাবার আপনার কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে পারে।

  • ইসবগুলের ভুসিও খুব কার্যকর। তবে সেটা খেতে হবে বুঝে–শুনে। অনেকে রাতে ইসবগুলের ভুসি খেয়ে ফেলেন, এতে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা কমার পরিবর্তে বেড়ে যায়। এর কারণ ঘুমের মধ্যে পর্যাপ্ত পানি পান করা হয় না। তাই ইসবগুলের ভুসি পেটে গিয়ে খাবার নরম করার সুযোগ পায় না। সে জন্য ইসবগুলের ভুসি খাওয়ার সঠিক সময় হচ্ছে সকাল বা দুপুরবেলা। এতে অনেকটা সময় জেগে থাকার ফলে পর্যাপ্ত পানি খাওয়া হয় আর কষার সমস্যা কমে যায়।

এসব উপায়ের পাশাপাশি কিছু কাজ বর্জন করাও জরুরি। এই যেমন—

  • অতিরিক্ত চিন্তা করলে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা বেড়ে যেতে পারে। সে জন্য নিজেকে চিন্তামুক্ত রাখতে হবে।
  • অনেকে মলত্যাগের অনুভূতি এলে চেপে রাখেন। এতে এই সমস্যা বেড়ে যেতে পারে। সে জন্য মলত্যাগের চাপ অনুভূত হলে চেপে না রেখে মলত্যাগ করতে হবে। 

নবীনতর পূর্বতন